রাত ১:১১ । ৮ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ । ২১শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ । ৯ই রমজান, ১৪৪২ হিজরি


জরুরী নোটিশ/বিজ্ঞপ্তিঃ
* সর্বশেষ খবর সবার আগে পেতে ভিজিট করুন www.nilakashbarta.com – নীলাকাশ বার্তা ডট কম। ধন্যবাদ। জরুরী ভিত্তিতে বাংলাদেশের জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোটাল www.nilakashbarta.com – নীলাকাশ বার্তা ডট কম পত্রিকায় জেলা/উপজেলা ভিত্তিক প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে, আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন। অফিস : সুন্দরবন টাওয়ার (২য় তলা), নূরনগর বাজার, নূরনগর-৯৪৫১, শ্যামনগর, সাতক্ষীরা, ঢাকা, বাংলাদেশ। মোবাঃ +৮৮০১৮৮৫-১৭৫৬৮০, +৮৮০১৯৫৬-৬৯৫৯৮১, ই-মেইল : nilakashbarta@gmail.com, nuruzzamannews@gmail.com, ফেসবুক : www.facebook.com/nilakashbarta * To get the latest news, visit www.nilakashbarta.com first. Thanks. District/Upazila based representatives will be appointed in the popular online news portal www.nilakashbarta.com of Bangladesh on an urgent basis. Those interested should contact. Office: Sundarbans Tower (2nd Floor), Nurnagar Bazar, Nurnagar-9451, Shyamnagar, Satkhira, Dhaka, Bangladesh. Mob: +8801885-175680, + 801958-695971, E-mail: nilakashbarta@gmail.com, nuruzzamannews@gmail.com, Facebook: www.facebook.com/nilakashbarta
শিরোনাম

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে আজ সন্ধ্যার বৈঠক থেকে সর্বশেষ জানা গেল”

Spread the love

নীলাকাশ বার্তাঃ “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে বৈঠকে বসেছে ছয় মন্ত্রণালয়। “শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সভাপতিত্বে আজ শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে এ বৈঠক শুরু হয়।”

“এর আগে গত ২২ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মন্ত্রিসভার বৈঠকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পরিবেশ পর্যালোচনা করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট দের নির্দেশ দিয়েছিলেন।

মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে “মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের সেদিন জানিয়েছিলেন, ‘দীর্ঘদিন বন্ধ থাকা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো কবে খুলে দেওয়া যায়- তা পর্যালোচনার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।”

“দেশে প্রথম করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয় গত বছরের ৮ মার্চ। প্রথম মৃত্যু হয় ১৮ মার্চ। গত বছরের ১৭ মার্চ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এখন পর্যন্ত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। সর্বশেষ ২৪ ফেব্রুয়ারি এক আদেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানোর কথা জানানো হয়।”

আরও পড়ুন

Al Jazeera’s report on what the Prime Minister said ”

Nilakash Barta: Regarding the report aired on Qatar-based television channel Al-Jazeera, Prime Minister Sheikh Hasina said, “I have no reaction, I have nothing to say.” Because, the people of the country will judge what a channel is saying or not saying. “The people of the country will judge how true it is, how false it is, how fabricated it is.” And what they’re doing is a big deal. ”

He was responding to a question from reporters at a press conference at the Prime Minister’s Office at 4pm on Saturday.

 

Replying to the question, the Prime Minister said, “One thing to remember is the self-confessed murderers of Father of the Nation Bangabandhu, who were given indemnity. They have been given a chance to vote. They have been given a chance to get elected. They have been given a chance to vote. They have been given a chance to get elected. What do you think about those who have done this? ”

Sheikh Hasina said, “When I came to the government as a child, but I tried to kill my parents.” We have tried this by canceling this indemnity. “We have tried the war criminals who have carried out genocide, raped women, set fires and looted in this country. Bangabandhu started their trial.” But after killing the father of the nation in 1975, Ziaur Rahman came and freed them and made them ministers, advisers and partners in the government. “There have also been trials of those involved in corruption and looting. Those who have been tried have been convicted. Will their accomplices, their families remain silent? We see some of them, they also have some fuel.”

The Prime Minister further said, “At the same time, there is a strange interaction in the politics of Bangladesh – ultra left, ultra right (extreme left and extreme right) become one from time to time. Is our crime my big question?”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *