সকাল ৭:৪৩ । ২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ । ৭ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ । ২৩শে রজব, ১৪৪২ হিজরি


জরুরী নোটিশ/বিজ্ঞপ্তিঃ
* সর্বশেষ খবর সবার আগে পেতে ভিজিট করুন নীলাকাশ বার্তা ডট কম। ধন্যবাদ। জরুরী ভিত্তিতে বাংলাদেশের জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোটাল নীলাকাশ বার্তা ডট কম পত্রিকায় জেলা/উপজেলা ভিত্তিক প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে, আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন। অফিস : সুন্দরবন টাওয়ার (২য় তলা), নূরনগর বাজার, নূরনগর-৯৪৫১, শ্যামনগর, সাতক্ষীরা, ঢাকা, বাংলাদেশ। মোবাঃ +৮৮০১৮৮৫-১৭৫৬৮০, +৮৮০১৯৫৬-৬৯৫৯৮১, ই-মেইল : nilakashbarta@gmail.com, nuruzzamannews@gmail.com, ফেসবুক : https://www.facebook.com/nilakashbarta
শিরোনাম
“ট্রেনের নিচে প্রেমিক যুগলের ঝাঁপ, জীবন গেল প্রেমিকের” “চলতি সপ্তাহের ভাইরাল সংবাদ “ফেঁসে যাচ্ছেন নাসিরের স্ত্রী তামিমা!” “বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ বাংলাদেশের স্বাধীনতার মূল প্রেরণা”- কবির নেওয়াজ দেশের বিভিন্ন এলাকায় বজ্র বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে “সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের নির্বাচন সম্পন্ন বাপ্পী সভাপতি, সুজন সম্পাদক” “৪ যুবকের সঙ্গে কিশোরীর ‘প্রেম’, পরে লটারিতে মীমাংসা!” “শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার আগে কাঁদতে কাঁদতে নববধূর মৃত্যু” গাড়িবোমা হামলা চালিয়ে ২০ জনকে হত্যা” “মিয়ানমারে চরম বিপাকে সেনাবাহিনী, রাস্তায় রাস্তায় ঝুলছে নারীদের লুঙ্গি!” “জোটের রাজনীতি- ঘরের আগুনে পুড়ছে ১৪ দল”

শ্যামনগরে কাঠের ফ্রিজ নির্মান করে চাঞ্চাল্যকর সৃষ্টি

আলমগীর হায়দার, স্টাফ রিপোর্টারঃ তথ্য প্রযুক্তির যুগে বিজ্ঞানের কল্যানে বিশ্ব এখন বিষ্ময়, রহস্যময়। রহস্য উদঘাটন করতে যেয়ে বিজ্ঞানীরা এমন কিছু উদ্ভাবন করেছেন যা মানব জীবনকে করেছে আলোকিত। বিশ্ববাসী উপভোগ করেছে দু’নয়ন ভরে, উপভোগ করেছে অন্তরাত্মা দিয়ে। চিকিৎসা, শিক্ষাক্ষেত্র, দৈনন্দিন জীবনে এমন কোন কিছু নেই যেখানে বিজ্ঞানের কল্যানকর ছোয়া লাগেনি। তথ্য প্রযুক্তি ও বিজ্ঞানের কলা কৌশল প্রযোগ করে কাঠের ফ্রিজ নির্মান এ যেন এক অন্যরকম পাওয়া। শৈল্পিক এ সৃষ্টিতে মুগ্ধ গুনীজনরা।

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার অজপাড়া গায়ের মধ্যবৃত্ত পরিবারে জন্ম নেওয়া শাহীন ২০০৯ সালে এসএসসি পাশ করে কুমিল্লা পলিটেকনিক ইনিস্টিটিউটে ভর্তি হয়। আর,এ,সি ডিপার্টমেন্ট থেকে পাশ করে ২০১৩ সালে বাহির হয় চাকুরির সন্ধানে, চাকরী জীবনে তিনি গমেজ ইঞ্জিনিয়ারিং এর মাধ্যমে বঙ্গভবনে আর,এ,সি ডিপার্টমেন্টে কাজ করেন। এরপর অন্যান্য নামি-দামি প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন।
পরবর্তিতে তিনি নিজের জন্মস্থানে ফিরে এসে মনোনিবেশ করেন নিজের সৃষ্টি কর্মের উপর। নিজের মেধাকে কাজে লাগিয়ে দৃষ্টিপাত সাংবাদিক আবু ইদ্রিসের আর্থিক সহোযোগিতায় প্রাথমিক ভাবে কাঠের ফ্রিজ তৈরি করেন। যা এখন দৃশ্যমান। এবিষয়ে শাহীনুর আলম বলেন, আমার নিজের উপর নিজের বিশ্বাষ ছিল আমি কাঠের ফ্রিজ নির্মান করতে পারব। আমি আজ তা করে দেখিয়েছি। অনেকে অনেক কথা বলেছে। আমি সেসব কথায় কর্ণপাত করেনি। তবে প্রথম কাজ করেছি একটু ভুল হয়েছে। এটা ঠিক হয়ে যাবে। আমি যদি একটু সাহায্য সহযোগিতা পায় তবে আামার কাজ করতে সুবিধা হবে।

এ দিকে কাঠের ফ্রিজ নির্মানের বিষয়টি নিয়ে এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যকর পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। তবে শাহীনের দাবি তার সৃষ্টি কাঠের ফ্রিজ একদিন সমাজের মানুষের নজর কাড়বে। চাহিদা পাবে মার্কেটে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী এ কাঠের ফ্রিজ।

আরও পড়ুন

“পুলিশের বিরুদ্ধে ‘তুলে নিয়ে যাবার’ অভিযোগ এনেও পিছিয়ে গেলেন মেয়র প্রার্থী মশিউর রহমান”

নীলাকাশ বার্তাঃ বাংলাদেশের মাদারীপুরের স্থানীয় নির্বাচনের এক প্রার্থী সেখানকার পুলিশ সুপারের বিরুদ্ধে তার ইচ্ছের বিরুদ্ধে গাড়িতে তুলে ঢাকায় নিয়ে আসার অভিযোগ তোলার দুদিন পর এখন নিজেই বলছেন. এ নিয়ে আর “কথা বলতে চান না তিনি।”

অভিযোগে বলা হয়েছিল, মাদারীপুরের কালকিনিতে আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদের একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী মশিউর রহমানকে তার ইচ্ছের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সাথে সাক্ষাৎ করাতে গাড়িতে তুলে ঢাকায় নিয়ে আসেন জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান এ অভিযোগ অস্বীকার করছেন।

পুলিশের গাড়িতে যাবার পর মশিউর রহমান নিখোঁজ হয়েছেন বলে মাদারীপুরে গুজব ছড়ায় – ব্যাপারটি সংঘর্ষ ও মামলা পর্যন্ত গড়ায়।

অভিযোগটি মশিউর রহমান নিজেই তুলেছিলেন – যা স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়। এর পর পুলিশকে রাজনৈতিক ভাবে ব্যবহারের প্রসঙ্গটি আবারও সামনে চলে আসে।”

কিন্তু এখন মশিউর রহমান বলছেন, তিনি “এক ধরনের আশঙ্কা থেকে” বিষয়টি আর পুনরায় উল্লেখ করতে চান না”।

কি বলছে এই দুই পক্ষ?
অভিযোগকারী স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মশিউর রহমানের সাথে যখন টেলিফোনে কথা হচ্ছিল, তখন তিনি পুলিশের বিরুদ্ধে আনা তার অভিযোগ নিয়ে সরাসরি আর কথা বলতে চাননি।”

“সেদিনের ঘটনা সম্পর্কে তিনি নিজেই কিছুটা ভিন্ন ভাষায় কথা বলছিলেন।”

তিনি বলেন, “ওই দিনের ঘটনা নিশ্চয়ই আপনি বিভিন্ন চ্যানেলের মাধ্যমে জেনেছেন। ওইটা পুনরায় বলতে চাচ্ছি না। ১৪ই ফেব্রুয়ারি নির্বাচন। আমি ব্যক্তিগত ভাবে নিজে অনুমান করছি যে সরকার দলীয় প্রভাব ভোটার ও আমার ওপর পড়বে। নির্বাচন খুব নিকটে। পুলিশের সাহায্য কিন্তু আমারও লাগবে।”

এর আগে স্থানীয় গণমাধ্যমে তারই বরাত দিয়ে খবর বের হয়েছিল যে শনিবার তাকে জেলার পুলিশ সুপার গাড়িতে করে ঢাকায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের কাছে নিয়ে গিয়েছিলেন।

বিবিসি বাংলাকে তিনি অবশ্য বলেছেন, বর্তমানে সরকারের একজন প্রভাবশালী মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের তাকে প্রার্থীতা প্রত্যাহার করতে বলেছেন।

তবে পুলিশের গাড়িতে যাওয়ার ব্যাপারে তিনি কিছুটা ভাষ্য পরিবর্তন করে বলছেন, তিনি নিজে স্বেচ্ছায় গিয়েছিলেন।

তিনি বলেছেন, “আমি পুলিশ সুপারের সাথে আইন শৃঙ্খলা বিষয়ে কথা বলতে গিয়েছিলাম। আমি যে কোন ভাবেই ঢাকায় গিয়েছি। এর মধ্যে আসলে পুলিশের ভূমিকা ছিল। সেটা আমি অস্বীকার করবো না।”

গত শনিবার সন্ধ্যায় তার সমর্থকরা থানা ঘেরাও করেছিলেন এবং সেখানে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসানের সাথে কথা হলে তিনিও স্বীকার করেন তার গাড়িতে করেই গিয়েছিলেন মশিউর রহমান, তবে স্বেচ্ছায়।

মাহবুব হাসান বলেছেন, “তিনি আমাদের কাছে সহযোগিতা চেয়েছিলেন। আমরা তাকে সেই সহযোগিতা করছি। তিনি নিখোঁজ হলে পরিবারের সাথে কিভাবে ফোনে যোগাযোগ করলেন? থানায় যখন তার লোকজন জড়ো হয় তখন ওসির ফোনে সে ফোন করে এবং লাউড স্পিকারে সবাইকে তার কথা শুনাই। এরপর কিন্তু তার লোকজন চলে যায়।”

তবে এখন প্রশ্ন উঠছে স্ব-ইচ্ছায় হলেও পুলিশের গাড়িতে করে তার ঢাকায় ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের কাছে যাওয়ার কেন দরকার পড়লো? সে প্রসঙ্গে মশিউর রহমান এবং পুলিশ সুপার কারো কাছেই ঠিক পরিষ্কার জবাব মেলেনি।

পুলিশের ভূমিকা এখানে ঠিক কি সেটিও পরিষ্কার নয় তাই সে নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।

মানবাধিকার কর্মী নুর খান লিটন বলছেন, “বাংলাদেশে পুলিশকে রাজনৈতিক ভাবে ব্যবহারের অভিযোগ নতুন নয়। ক্ষমতাসীন দল তাদের কাজের জন্য পুলিশকে ব্যবহার করছে। কিন্তু বিষয়টি এমন একটা ভয়াবহ অবস্থায় গেছে যে এখন শুধু নির্বাচনের দিন না, প্রার্থিতা প্রত্যাহারে চাপ দেবার ক্ষেত্রেও পুলিশকে দিয়ে কাজ করিয়ে নেয়া হচ্ছে।”

তিনি বলছেন, “যখন কাউকে আপনি নিজের স্বার্থে অন্যায়, অবৈধ ভাবে কাজে লাগান তখন সে স্বাভাবিক ভাবেই কিছু সুযোগ সুবিধা আদায় করে নেবে বা কিছু নিয়ম বহির্ভূত কাজ করবে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *